ট্রান্সজেন্ডারিজমের করাল গ্রাস: কিন্তু

ট্রান্সজেন্ডারিজমের করাল গ্রাস: কিন্তু

সূচিপত্র

ভূমিকা
অধ্যায় ১: একটি সহজ প্রশ্ন
অধ্যায় ২: জেন্ডার থিওরির ইতিহাস
অধ্যায় ৩: জন মানি
অধ্যায় ৪: কীভাবে কারিকুলামে জেন্ডার থিওরি ঢুকে গেলো
অধ্যায় ৫: ট্রান্সজেন্ডাররা যেভাবে সব দখল করে নিলো
অধ্যায় ৬: ট্রানজিশনের প্রতিশ্রুতি
অধ্যায় ৭: তাসের ঘরের পতন
অধ্যায় ৮: ট্রান্সজেন্ডার সাংস্কৃতিক সংঘাত
অধ্যায় ৯: গোলাপি পুলিশ স্টেটের বুটের চাপায় ধ্বংস
অধ্যায় ১০: বিদ্রোহ
উপসংহার: আফ্রিকা
কিন্তু
রেফারেন্স

 

কিন্তু

ম্যাট ওয়ালশ অনেক ফ্যাক্ট, ক্ষতি নিয়ে কথা বললেও তিনি লিবারেলদের মৌলিক যুক্তিটাকে স্পর্শ করেননি। তা হলো, ‘স্বাধীনতা’ ও ‘সর্বোচ্চ সুখ’।

লিবারেলিজমের মূল লক্ষ্য হলো মানুষের জন্য সর্বাধিক স্বাধীনতা ও সমতা নিশ্চিত করা। এগুলো নিশ্চিত করতে গিয়ে যদি অন্য সবকিছুও ধ্বংস হয়ে যায় তবে তাই সই। On liberty নামের বিখ্যাত বইয়ে এ বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন জন স্টুয়ার্ট মিল। অর্থাৎ, একজন মানুষকে যা ইচ্ছা তা করার স্বাধীনতা দিতে হবে। ততক্ষণ পর্যন্ত যতক্ষণ সে অন্য কারো ক্ষতি করছে না। এ সীমাকে বলা হয় ‘হার্ম প্রিন্সিপল’।

এটা শুধু বামপন্থী লিবারেলদের সমস্যা নয়, ম্যাট ওয়ালশ নিজেও একজন ক্লাসিকেল লিবারেল। কেননা আমেরিকার স্বাধীনতা সংগ্রাম অন্যতম কারণ যার থেকে লিবারেলিজমের উত্থান ঘটে। আমেরিকার ফাউন্ডিং ফাদার সবাই ছিলেন লিবারেল। তারা ধর্মকে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় স্থান থেকে সরিয়ে দিয়েছিলেন। তারা মূলনীতি হিসেবে মেনে নিয়েছেন, মানুষের সর্বোচ্চ সুখ নিশ্চিত করতে হবে।

এখন ম্যাটকে যদি প্রশ্ন করা হয়, ‘যদি কেউ নিজের সুখের জন্য ট্রান্সজেন্ডার হয়, সেক্ষেত্রে সমস্যা কী?’

ম্যাটের কাছে কি এর জবাব আছে?

ট্রান্সজেন্ডারিজমকে বন্ধ করা সম্ভব না যতদিন আপনি একে শুধু লাভক্ষতির হিসাব করবেন। কেননা প্রথমত বিজ্ঞান দিনকে দিন উন্নত হচ্ছে। যার কারণে ক্ষতির পরিমাণ ক্রমশ কমে আসবে। দ্বিতীয়ত মানুষ আনন্দের জন্য নিজের ক্ষতি করেই। যেমন সিগারেট-ওয়াইন খাওয়া, ফাস্টফুড খাওয়া, রাতজাগাসহ অনেক কিছু। আর সভ্যতা ধ্বংস হলেও কার কী? তাই এভাবে ট্রান্সজেন্ডারিজমকে উচ্ছেদ করা সম্ভব না।

ঠিক এখানেই ধর্ম জরুরি। ইসলাম জরুরি। ইসলাম ট্রান্সজেন্ডারের সাথে জড়িত সব প্রশ্নের খুব সোজাসাপ্টা জবাব দেয়। যেমন:

‘আমার দেহ ছেলে হলেও ভেতরে মেয়ের আত্মা আটকে আছে’
মুসলিমদের বিশ্বাস হলো, আল্লাহ ভুল করেন না। তাই পুরুষদেহে নারী আটকে থাকা সম্ভব না।

‘আমার দেহের মালিক আমি। তাই যা ইচ্ছা করবো’ তোমার দেহের মালিক তুমি না। বরং আল্লাহ। তাই তিনি যা বলেছেন তা করতে হবে।

‘আমি আনন্দের জন্য করলে সমস্যা কী?’

সমস্যা হলো, আল্লাহ ও তাঁর রাসূল ﷺ এটাকে হারাম করেছেন।

একজন প্র্যাক্টিসিং মুসলিমের পক্ষে ট্রান্সজেন্ডার হওয়া সম্ভব না। কেননা সে মনে করে না যে সে যা ইচ্ছা তা করতে পারবে। কেননা সে আল্লাহর দাস। উনার কথামতই চলতে হবে। এভাবে মুসলিম লিবারেলিজমের স্বাধীনতার ধারণাকে অস্বীকার করে। দ্বিতীয়ত, মুসলিম মনে করে পরম সুখের স্থান জান্নাত, দুনিয়া না। দুনিয়া হলো পরীক্ষা। আল্লাহর ঠিক করে দেওয়া সীমার বাইরে তাই সে আনন্দ খুঁজতে পারবে না। নিজের ক্ষতিও করতে পারবে না। তাই একজন মুসলিম সর্বোচ্চ সুখ খুঁজে বেড়ায় না।

লিবারেল ওয়ার্ল্ডভিউ ট্রান্সজেন্ডারসহ অনেক বিকৃত ধারণার জন্ম দেবে। আর মূল ওষুধ হলো ইসলাম।

 

প্রিয় পাঠক, ট্রান্সজেন্ডারিজমের করাল গ্রাস বইটি হার্ডকপি প্রকাশের মাত্র ২ দিনের মাথায় উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। বইটি পড়ে আপনার ভালো লাগলে বা অন্যদের পড়া প্রয়োজন মনে করলে অন্তত আপনার ১০ জন বন্ধুকে বইটির কথা শেয়ার করুন।

 

ট্রান্সজেন্ডার সংক্রান্ত কিছু প্রশ্নোত্তর

  1. What is the Islamic view on transgenders?- https://islamqa.org/hanafi/askmufti/81691/view-on-transgender/
  1. What is the ruling of a transgender person?- https://islamqa.org/hanafi/darululoomtt/148814/what-is-the-ruling-of-a-transgender-person/
  2. When is it permissible to do a sex-change operation from male to female or vice versa?- https://islamqa.info/en/answers/138451/when-is-it-permissible-to-do-a-sex-change-operation-from-male-to-female-or-vice-versa
  3. Islam and Transgenderism: What Does the Shariah Say? With Ustadh Mobeen Vaid- https://youtu.be/yRM4ibg9TSw
  4. Islamic Preacher SLAMS Matt Walsh’s Anti-Trans Film- https://www.youtube.com/watch?v=xW0wXSBJWbA&ab_channel=TheMuslimSkeptic

 

উপসংহার: আফ্রিকা <<আগের অধ্যায়                                              পরের অধ্যায়>> রেফারেন্স

Book: ট্রান্সজেন্ডারিজমের করাল গ্রাস Tags:

This entry was posted in . Bookmark the permalink.